পাকিস্তানে ফরাসি পণ্য বর্জন ও দূতকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত

দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাসে ফ্রান্সে মহানবী হযরত মোহাম্মদ (স.)কে নিয়ে ব্যঙ্গচিত্র করার প্রতিবাদে পাকিস্তানে বিক্ষোভ বন্ধ ঘোষণা করেছে তেহরিকে লাবাইক (টিইএল) দলের নেতাকর্মীরা। বিক্ষোভ থেকে এক মুখপাত্র বলেছেন, পাকিস্তান সরকার ফরাসি পণ্য বর্জন অনুমোদন করেছে। রাজধানী ইসলামাবাদে এই বিক্ষোভে সোমবার অংশ নিয়েছেন কয়েক হাজার মুসলিম, নেতাকর্মী।

তবে সোমবারের ওই বিক্ষোভের সময় রাজধানী ইসলামাবাদে প্রধান সড়কে পুলিশের সঙ্গে তাদের সংঘর্ষ হয়েছে। তেহরিকে লাবাইক পার্টির মুখপাত্র ইজাজ আশরাফি টেলিফোনে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের সাংবাদিককে বলেছেন, পাকিস্তান সরকার ফরাসি সব পণ্য বর্জন অনুমোদন করেছে আনুষ্ঠানিকভাবে। এমন চুক্তিতে সরকার স্বাক্ষর করার পর আমরা বিক্ষোভ বন্ধ করেছি। তবে চুক্তির বিষয়ে পাকিস্তান সরকার কোনো মন্তব্য করেনি। ওই চুক্তির একটি কপি দেখতে পেয়েছেন রয়টার্সের সাংবাদিক। তাতে দু’জন মন্ত্রী, একজন শীর্ষ স্থানীয় কর্মকর্তা ও তেহরিকে লাবাইক নেতাদের স্বাক্ষর দেখা যাচ্ছে।

ইজাজ আশরাফি আরো জানান, আগামী দুই থেকে তিন মাসের মধ্যে পার্লামেন্টের মাধ্যমে পাকিস্তান থেকে ফরাসি দূতকে বহিষ্কারের জন্য সরকার কাজ করবে। একই সঙ্গে প্যারিসে কোনো রাষ্ট্রদূত পাঠাবে না পাকিস্তান।

অন্যান্য শর্তের সঙ্গে এসব শর্ত রয়েছে ওই চুক্তিতে। মুখপাত্র আরো জানান, তিনি মুক্তি পাওয়ার পর পরই অল্প সময়ের মধ্যে গ্রেপ্তার হওয়া সব বিক্ষোভকারী ও নেতাকে মুক্তি দেয়ার কথা। বিক্ষোভকারী এই দলটি রাজধানীর প্রধান প্রবেশপথ বন্ধ করে রেখেছিল। এ সময় তাদের দাবি ছিল ফ্রান্সের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করতে হবে এবং ফরাসি রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কার করতে হবে।

উল্লেখ্য, ফ্রান্সে মহানবী (স.)-এর ব্যঙ্গচিত্রের প্রতিবাদে বিশ্বে বিভিন্ন মুসলিম দেশে তীব্র প্রতিবাদ হচ্ছে। মুসলিমদের কাছে মহানবী (স.)-এর ব্যঙ্গচিত্র ধর্ম অবমাননা এবং অমার্জনীয় একটি অপরাধ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *