একের পর এক যৌন কেলে*ঙ্কারি, নায়িকা শিলার কারণে ভেঙেছে আমেরিকা প্রবাসীর সংসার!

স্ত্রীর আগের ঘরের সংসারের শি’শু স’ন্তানকে যৌ’ন হ’য়রানির অ’ভিযোগে এক বাংলাদেশি-আমেরিকান গ্রে’ফতার হয়েছেন। কথিত বাংলাদেশ চলচ্চিত্র নায়িকার কারণে ভে’ঙেছে প্রবাসীর সং’সার। চাচার হাতে স্কুলপড়ুয়া ছা’ত্রী যৌ’ন হয়রানির শি’কার হয়েছে বলে অ’ভিযোগ উঠেছে। বাংলাদেশি এক সাংবা’দিকের আ’পত্তিকর-ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল।

নিউইয়র্কে সামাজিক অ’বক্ষয়ের এমন নানা ঘটনার কথা শোনা যাচ্ছে প্রায়ই। এসব ঘটনা নিয়ে বি’ব্রত বাংলাদেশ কমিউনিটির মা’নুষ। এতে ভা’বমূর্তি ক্ষু’ণ্ন হচ্ছে কমিউনিটির।

শি’শু ধ’র্ষণের অ’ভিযোগে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত আক্কাস আলী ওরফে মোহাম্মদ আলী (৬৮) নামে এক বাংলাদেশি-আমেরিকান বৃ’দ্ধের শা’স্তি চেয়ে তার বাড়ির সামনে বি’ক্ষো’ভ করেছেন প্রবাসীরা। গত শুক্রবার দুপুরে হাডসন শহরের প্রমেনেডি হিলের কাছে তার বি’রুদ্ধে বি’ক্ষো’ভ কর্মসূচির আয়োজন করে ‘জাগো হাডসন’ নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা।

বি’ক্ষো’ভকারীরা অ’ভিযোগ করেন, ২০১৫ সালে পুলিশের কাছে প্রথম তার বি’রুদ্ধে নি’র্যাতনের অ’ভিযোগ জানান ফারজানা মৌসুমী নামে এক প্রবাসী না’রী। তারপর নানা কারণে সময়ক্ষেপণ করে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন। লাগাতার কর্মসূচির পরিপ্রেক্ষিতে আক্কাস আলীকে প্রথম গ্রে’ফতার করা হয় গত বছর নভেম্বরে এবং তৃতীয়বারের মতো গ্রে’ফতার হন এ বছর মার্চে। বর্তমানে তিনি জা’মিনে রয়েছেন বলে জানা গেছে।

‘জাগো হাডসন’- এর অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা জেরিন আহমেদ বলেন, শি’শুদের যৌ’ন-নি’র্যাতন ও যৌ’ন হা’মলার কয়েকটি ঘটনায় আক্কাস আলী অ’ভিযুক্ত। গত কয়েক দশকে এই আক্কাস আলী কর্তৃক ধ’র্ষিত হয়েছেন অন্তত ৮ শি’শু-কি’শোর। এর মধ্যে এখন পর্যন্ত তিনজন পু’লিশে অ’ভিযোগ করেছেন।

সিলেটের স’ন্তান আক্কাস দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে নিউ ইয়র্কের হাডসনে বসবাস করছেন। আক্কাস আলীর মালিকানায় তিনটি ফুডকার্ট বা রাস্তার পাশে ভ্রাম্যমান খাবার বেচার দোকান রয়েছে। তার ছেলে-মে’য়েরা সেগুলো দেখভাল করেন।

জুরিবোর্ডের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ধ’র্ষণসহ নি’র্যাতন ও শি’শুর নি’রাপত্তা বি’ঘ্নিত করার অ’ভিযোগগুলো প্রমাণিত হলে তাকে সর্বোচ্চ ২৫ বছর জে’লে থাকতে হবে বলে জানান সেখানকার কলম্বিয়া কাউন্টির ডিস্ট্রিক্ট অ্যাটর্নি।

আক্কাসের মতো অ’ভিযোগ উঠেছে নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী থেকে আসা এক বাংলাদেশি-আমেরিকানের বি’রুদ্ধে। লং আইল্যান্ডে বসবাসরত ভু’ক্তভোগী ওই গৃ’হবধূ অ’ভিযোগ করেন, তার আগের ঘরের মে’য়ে তারই স্বা’মীর হা’তে যৌ’ন হ’য়রানির শি’কার হয়েছেন।পরে তিনি নিজের মে’য়ের ভবি’ষ্যতের কথা ভেবে এই স্বা’মীর সং’সার ছা’ড়েন।

২০০৭ সালে ওই না’রী দুই বছরের স’ন্তানসহ আত্মীয় স’ম্পর্কের কাজিনকে বিয়ে করেন। আমেরিকায় আসার পর প্রথম কয়েকদিন ভালোই চলছিল সংসার। কিন্তু আমেরিকা আসার কয়েক বছর পর স্বামী ম’দ্যপ অবস্থায় তাকে মা’রধর শুরু করেন। এভাবে শত ক’ষ্টের স’ন্তানের কথা ভেবে সং’সার ছা’ড়েননি তিনি। এদিকে মে’য়ে বড় হতে থাকে।

লং আইল্যান্ডের ওই গৃ’হবধূ অ’ভিযোগ করেন, ‘একসময় শি’শু স’ন্তান আমাকে বলতে শুরু করে, বাবা তার সঙ্গে আ’পত্তিকর আচরণ করছে। এছাড়া মেয়ে যত বড় হচ্ছে, মা’নসিক অ’ত্যাচার বাড়তে থাকে। প্র’তিবাদ করলেই আমার স্বামী আমাকে মা’রধর করে। আমি ৯১১ অ’ভিযোগ করলে পুলিশ পাঁচবার তাকে গ্রে’ফতার করে।পরে আমি আমার মে’য়ের ভবি’ষৎ চিন্তা করে ১৫ মাস ধরে আলাদা থাকি।

ওই গৃ’হবধূ আরও বলেন, “আমি যুক্তরাষ্ট্রে না আসলে আমার স্বা’মী, শ্বশুর ও ননদের এসব অ’পরাধের কথা জানতাম না। একেকজন মে’য়েকে বিয়ে ও ডি’ভোর্স দিয়ে ডলার কামানো তাদের ব্যবসা। আর এভাবে শুধু আমার জী’বন ন’ষ্ট হ’য়নি, আরও অনেকের জীব’ন ন’ষ্ট করেছে আমার শ্বশুরপক্ষ। ”

অ’ভিযোগ শুধু ওই ভু’ক্তভোগী গৃ’হবধূ ক’রেননি, খোদ ওই গৃ’হবধূর আপন ননদ তার বাবা, ভাই ও বোনদের এ ধরণের অ’পকর্মের কথা অকপটে স্বী’কার করেন। প’রিবারের এসব নোং’রামি কারণে ও স’ন্তানদের ভবি’ষ্যতের কথা চিন্তা করে নিজ প’রিবার ও আত্মীয়-স্বজন থেকে তিনি অনেকটাই দূরে সরে গেছেন বলেও জানান গৃ’হবধূর স্বা’মীর বড় বোন।

গত বছর একটি অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ এর যুক্তরাষ্ট্রে আসেন বাংলাদেশি নায়িকা শিলা। অ’ভিযোগ উঠেছে ‘শো’ করতে নিউইয়র্কের এক প্রবাসীর সঙ্গে হোটেলে অ’ন্তরঙ্গ মুহূর্তের ছবি প্রবাসীর স্ত্রী দেখে ফে’লেন। এরপর শুরু হয় সং’সারে অশান্তি।আওয়াজবিডির কাছে এসব প্রমাণ এসেছে।

২০১০ সালে প’রিবারের সম্মতিতে বিয়ে হলে ওই না’রীর কপালে আর সুখের দেখা মিলেনি। বিয়ের প্রায় পাঁচ বছর পরে ২০১৫ সালে বাংলাদেশে থেকে যুক্তরাষ্ট্র আসেন কুমিল্লার ওই গৃ’হবধূ।তাদের ঘরে একটি স’ন্তান রয়েছে।

ঘটনা এখানেই শেষ নয়, এরপর আরও উঠতি বয়সী মে’য়েদের ছবি ও ভিডিও স্ত্রী দেখার পর বা’ধ্য হয়ে সংসার করেন ওই গৃ’হবধূ। কিন্তু স্বা’মী তার অ’নৈতিক কাজ বন্ধ না করায় অ’ভিমান করে গত বছর বাংলাদেশে চলে যান তিনি। এরপর দেশ থেকে ফিরে চলতি বছর ফেব্রুয়ারিতে ওই গৃ’হবধূ বিবাহ বি’চ্ছেদের আবেদন করেন। মা’মলাটি আ’দালতে বিচারাধীন।

কয়েক বছর ধরে নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসে সোনার দোকানে, জ্যামাইকায় না’রী বিউটি পার্লারের আড়ালে বিভিন্ন ধরনের অ’নৈতিক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন বলে কমিউনিটির অনেকে অ’ভিযোগ তুলেছেন। এই নিয়ে বি’ক্ষো’ভ মা’নববন্ধন হয়েছে চলতি বছর। কমিউনিটির চা’পে গত কয়েকদিন আগে কুইন্সের ফ্রেসমেডো এলাকায় একটি বিউটি পার্লার বন্ধ হয়।

কয়েক দিন আগে ইনস্টাগ্রামে নিজের চাচা ও কমিউনিটির পরিচিত মুখ চৌধুরী নামের এক ব্য’ক্তির ছবি পোস্ট করে যৌ’ন হ’য়রানির অ’ভিযোগ করেন স্কুলপড়ুয়া শি’ক্ষার্থী। মুহূর্তেই ছবি ভাইরাল হয়ে যায়। এছাড়া নিউইয়র্কের পরিচিত এক সাং’বাদিকের আ’পত্তিকর ভিডিও ভাইরাল হয়, যা নিয়ে কমিউনিটির মা’নুষ বি’ব্রত।

নিউইয়র্কে বাংলাদেশি কমিউনিটিতে এমন নৈ’তিক অ’বক্ষয় নিয়ে উ’দ্বেগ প্রকাশ করে প্রবীণ সাংবাদিক মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘এসব নানা উ’দ্বেগের জন্ম দিয়েছে। পা’রিবারিক ও সামাজিকভাবে নৈ’তিক ও পরিচ্ছন্ন জী’বনযাপনের শিক্ষা থেকে আমরা অনেকেই সরে এসেছি।’

সূত্রঃ আওয়াজ বিডি

loading...

4 comments

  1. I blog often and I seriously appreciate your information. The article has truly peaked
    my interest. I will book mark your site and keep checking
    for new information about once a week. I opted in for your
    Feed too.

  2. Very quickly this web site will be famous amid all
    blogging visitors, due to it’s good articles

  3. Highly descriptive article, I liked that bit. Will there be a
    part 2?

  4. I like the helpful information you provide in your articles.
    I will bookmark your weblog and check once more here frequently.
    I’m reasonably sure I’ll be informed many new stuff
    proper right here! Good luck for the following!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *