লোকসানের ভয়ে সিএনজির শো-রুম ভাঙচুর করল বাস শ্রমিকরা-

শরীয়তপুরে একটি সিএনজি অটোরিকশার শো-রুমে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাঙচুর করেছে আন্তঃজেলা বাস ও মিনিবাস ইউনিয়নের শ্রমিকরা। এ সময় আটটি সিএনজি ভাঙচুর করেছে তারা। ভাঙচুরের দৃশ্য ধারণ করার সময় ডিবিসি টেলিভিশনের শরীয়তপুর প্রতিনিধি বিএম ইশ্রাফিলকে লাঞ্ছিত করেছে বাস শ্রমিকরা।

সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে জেলা শহরের কোর্ট বাজারে এ ঘটনা ঘটে। একই সঙ্গে বাস চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়। পরে শরীয়তপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য ইকবাল হোসেন অপুর হস্তক্ষেপে তিন ঘণ্টা পর বিকেল ৩টার দিকে বাস চলাচল শুরু হয়।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, শরীয়তপুর পৌর শহরের ব্যবসায়ী রুবেল খান শহরের কোর্ট বাজারে একটি সিএনজির শো-রুম চালু করেছেন। সোমবার দুপুরে শো-রুমটির উদ্বোধনের কথা ছিল স্থানীয় এমপি ইকবাল হোসেন অপুর। এরই মধ্যে সিএনজি শো-রুম উদ্বোধনের খবর পেয়ে দুপুর ১২টার দিকে সেখানে হামলা চালায় বাস শ্রমিকরা। এ সময় শো-রুমের আটটি সিএনজি ভাঙচুর করা হয়। ভাঙচুরের দৃশ্য ধারণ করার সময় ডিবিসি টেলিভিশনের শরীয়তপুর প্রতিনিধি বিএম ইশ্রাফিলকে লাঞ্ছিত করেছে বাস শ্রমিকরা। পরে সড়কের ওপর বাস ফেলে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয় তারা।

পৌর শহরের ব্যবসায়ী রুবেল খান বলেন, আমি বৈধভাবে কাগজপত্র নিয়ে সিএনজির শো-রুম চালু করেছি। এটির উদ্বোধনের কথা ছিল আমাদের এমপি ইকবাল হোসেন অপুর। কিন্তু বাস মালিকদের ইন্ধনে আমার শো-রুমে ভাঙচুর করেছে শ্রমিকরা। আটটি সিএনজি ভাঙচুর করেছে তারা। এতে আমার অন্তত ২০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

ডিবিসি টেলিভিশনের শরীয়তপুর প্রতিনিধি বিএম ইশ্রাফিল বলেন, হামলার ছবি তুলতে গেলে আমার ওপর হামলা চালায় বাস শ্রমিকরা। শ্রমিকরা আমার ক্যামেরা ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। আমাকে আঘাত করে মাটিতে ফেলে দেয়। এতে আমি পায়ে আঘাত পেয়ে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছি।

এ বিষয়ে শরীয়তপুর আন্তঃজেলা বাস ও মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি ফারুক চৌকিদার বলেন, শরীয়তপুরে আটোরিকশা ও ছোট গাড়ির জন্য পরিবহন ব্যবসায় লোকসান হচ্ছে। এ অবস্থার মধ্যে শহরে সিএনজি চলাচল শুরু হয়েছে। সেই সঙ্গে সিএনজির শো-রুম খোলা হয়েছে। আমরা ওই সিএনজির শো-রুম বন্ধের জন্য অনেকবার স্থানীয় প্রশাসনের কাছে যাই। কিন্তু কোনো কাজ হয়নি। ফলে আজ সিএনজির শো-রুম উদ্বোধনের খবরে বাস শ্রমিকরা উত্তেজিত হয়ে যায়। তারা ওই শো-রুমটি বন্ধ করে দিতে সেখানে যায়।

শরীয়তপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (নড়িয়া সার্কেল) কামরুল হাসান বলেন, ঘটনাটি অনাকাঙ্ক্ষিত। এভাবে একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলার ঘটনা কাম্য নয়। এ বিষয়ে কোনো পক্ষই লিখিত অভিযোগ দেয়নি। স্থানীয় এমপি ইকবাল হোসেন অপু দুই পক্ষের সঙ্গে কথা বলেছেন। দুই পক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে বিষয়টি সমাধান করবেন এমপি।