এন্ড্রয়েড মোবাইলে ভাইরাস দূর করার উপায় – Dhaka source

মোবাইলে ভাইরাস দূর করার উপায় : ভাইরাস শব্দটির সাথে আমরা কমবেশি সবাই পরিচিত। কেননা, মোবাইল হোক কিংবা কম্পিউটার প্রায় সব ধরনের ডিভাইসে ভাইরাস এর বিচরন লক্ষ্য করা যায়।

 

আর Virus যে একটি ডিভাইস এর জন্য কতটা বিপদজনক তা আমরা সবাই বেশ ভালোভাবে জানি।

 

কেননা, একটি দুরারোগ্য ব্যাধি যেমন মানব জীবনকে তিলে তিলে ধ্বংস করে দেয়। ঠিক তেমনি ভাবে একটি ডিভাইস কে তিলে তিলে ধ্বংস করার জন্য ভাইরাস এর কোনো জুড়ি নেই।

 

তবে কম্পিউটার ডিভাইসের জন্য বিভিন্ন ধরনের Anti Virus Software থাকলেও। মোবাইল ডিভাইস গুলোর জন্য তেমন কোনো এন্টিভাইরাস ছিলো না।

 

কিন্তুু সময় পরিবর্তন এর সাথে সাথে আজকের দিনে এমন অনেক Mobile Virus Cleaner Apps এসেছে।

 

যার মাধ্যমে আপনিও আপনার মোবাইল ফোন কে একেবারে সুরক্ষিত রাখতে পারবেন ৷

 

কিন্তুু দুঃখজনক হলেও সত্য যে, আমাদের মধ্যে এমন অনেক মানুষ আছেন ৷

 

যারা এই মোবাইল ভাইরাস কে তেমন একটা গুরুত্ব দেয় না। কেননা, অনেক মানুষ এখনও জানে না যে, কিভাবে এই মোবাইল ডিভাইস গুলোর ভাইরাস দুর করতে হয়।

 

আর সেই মানুষ গুলোর উদ্দেশ্যেই আজকের এই আর্টিকেলটি লেখা হয়েছে।

 

আজকে আমি আপনাকে এমন কিছু মোবাইলের এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার এর সাথে পরিচয় করিয়ে দিবো।

 

যেগুলোর মাধ্যমে আপনিও আপনার মোবাইল কে ভাইরাস থেকে সুরক্ষিত রাখতে পারবেন।

 

এবং আজকের আর্টিকেলে আমি বেশ কিছু মোবাইলে ভাইরাস দূর করার উপায় বলবো।

 

যেগুলো মেনে চললে আপনার সাধের ফোনটি তে কখনও ভাইরাস আক্রমন করতে পারবে না। তো চলুন এবার মূল আলোচনা তে ফিরে যাওয়া যাক।

 

ভাইরাস কি? (What is Virus?)

আজকে আমরা মোবাইলে ভাইরাস দূর করার উপায় গুলো সম্পর্কে অবশ্যই বিস্তারিত আলোচনা করবো। তবে সবার আগে আপনাকে জেনে নিতে হবে যে, ডিভাইজ ভাইরাস কাকে বলে? –

 

তাহলে পরবর্তী আলোচনা গুলো আপনার বুঝতে সুবিধা হবে।

 

যদি আমি Virus কে সংঙ্গায়িত করি তাহলে বলবো, ভাইরাস হলো এমন কিছু প্রোগ্রাম এর সমন্বয়। যার মাধ্যমে আপনার ডিভাইস এর চলমান Programme  গুলোকে নির্দেশিত পথে চলতে বাধা প্রদান করবে ৷

 

এবং এরফলে আপনার ব্যবহার করা ডিভাইসটি আর আপনার নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ করতে পারবে না।

 

হয়তবা বিষয়টি আপনার মাথার উপর দিয়ে যেতে পারে ৷ তাই এই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি আরেকটু পরিস্কার ভাবে আলোচনা করা উচিত।

 

দেখুন আপনি যখন আপনার মোবাইলে কোনো গেমস এর উপর ক্লিক করেন। তখন কিন্তুু সেই গেমটি চালু হয়।

 

অর্থ্যাৎ, আপনার ডিভাইসে এমন কিছু Programme সেটআপ করা আছে। যেগুলোর মাধ্যমে আপনি আপনার নিজের ইচ্ছামতো Device কে কন্ট্রোল করতে পারছেন।

 

কিন্তুু আপনার ডিভাইসে থাকা এই প্রোগ্রাম গুলোর মতো VIRUS হলো এক ধরনের প্রোগ্রাম। যখন এই প্রোগ্রাম গুলো আপনার ডিভাইসে প্রবেশ করবে ৷

 

তখন কিন্তুু তারা আপনার ডিভাইসে থাকা সেটআপ করা প্রোগ্রাম গুলোকে সঠিক পথে চলতে বাধা প্রদান করবে। মূলত এই ধরনের Programme গুলো কে বলা হয়ে থাকে ভাইরাস৷ 

 

ভাইরাসের কাজ কি?

উপরের আলোচনা থেকে আপনি ভাইরাস কি তা বেশ ভালোভাবে বুঝতে পেরেছেন। এখন যদি আপনাকে প্রশ্ন করা হয় যে, আসলে এই Virus এর কাজ গুলো কি কি? –

 

তাহলে এ প্রশ্নের উওরে আপনি কি বলবেন? থাক আপনাকে বলতে হবে না, বরং আমিই বলছি।

 

দেখুন উদাহরন হিসেবে আমি একটা মানব দেহের সাথে তুলনা করি। আমরা মানুষরা প্রতিনিয়ত আমাদের অঙ্গ প্রত্যঙ্গ গুলোকে নিজের ইচ্ছের উপর ভিওি করে ব্যবহার করি।

 

কিন্তুু কোনো না কোনো সময়ে এই অঙ্গ প্রত্যঙ্গ গুলোকে ক্রমাগত ভাবে দুর্বল হয়ে পড়ে৷ যার ফলে আমরা অসুস্থ হয়ে পড়ি।

 

ঠিক একইভাবে আপনি যদি এখন একটি ইলেকট্রিক ডিভাইস এর সাথে তুলনা করেন ৷ তাহলেও কিন্তুু আপনি একই চিএ পরিলক্ষিত করতে পারবেন।

 

কেননা, এই ডিভাইস গুলোতে কিন্তুু পূর্বে থেকেই Programme Setup করে দেয়া থাকে। যার ফলে আমরা যখন মোবাইলে কাউকে কল দেয়ার জন্য ক্লিক করি ৷

 

তখন সরাসরি কল চলে যায়। আবার যখন গান শোনার জন্য Music players এ ক্লিক করি৷ তখন আমরা গান শুনতে পাই।

 

কিন্তুু যখন এই ডিভাইস গুলো ভাইরাস দ্বারা সংক্রমিত হয়৷ তখন কিন্তুু আগে থেকে সেটআপ করা এই Programme গুলো আর আপনার নির্দেশ মতো কাজ করতে পারবে না।

 

কেননা, এই প্রোগ্রাম গুলোকে সঠিক পথে চলতে বাধা প্রদান করবে ভাইরাস ৷

 

যার ফলে আপনি কল দেয়ার জন্য ক্লিক করলেন। কিন্তুু আপনার ফোনে গান চালু হতে পারে।

 

এটা তেমন অস্বাভাবিক কিছু নয়। আবার অনেক সময় দেখা যাবে আপনার ডিভাইসটি ভাইরাস দ্বাড়া আক্রান্ত হওয়ার ফলে হ্যাং বা ল্যাগ করবে। যা কমন একটি বিষয়।

 

তো ভাইরাস এর মূল কাজই হলো, আপনার ডিভাইস এ থাকা Programme গুলোকে এলোমেলো করে দেয়া ৷

 

এবং ক্রমাগত ভাবে আপনার সাধের ডিভাইস কে নষ্টের পথে ঠেলে দেয়া। যা আপনার মোবাইল এর জন্য কখনই মঙ্গল বয়ে আনবে না। 

 

এন্টিভাইরাস কি? (What is Anti Virus)

আমাদের মধ্যে এমন অনেক মানুষ আছেন। যাদের একটা ভ্রান্ত ধারনা আছে ৷ তাহলো, আমরা অনেকেই ভাইরাস এবং এন্টিভাইরাস কে একই বিষয় মনে করি।

 

কিন্তুু কথাটা তিতা হলেও সত্যে যে, এই দুটো কখনই এক বিষয় নয়।

 

মনে করুন, আপনি হঠাৎ কোনো রোগের কারনে অসুস্থ হয়ে পড়লেন৷ এরপর আপনি ডক্টরের কাছে গিয়ে ওষুধ খেলেন ৷ তারপর আবার পুনরায় সু্স্থ হয়ে গেলেন।

 

তো এখানে আপনার “রোগ” এবং “ওষধ” এই দুটোই কিন্তুু আলাদা আলাদা বিষয় ৷

 

ঠিক এভাবে যদি আমরা Virus এবং Anti Virus এর পার্থক্য খুজে বের করার চেস্টা করি। তাহলে কিন্তুু এই বিষয়টা আপনার জন্য অনেক বেশি সহজ হয়ে যাবে।

 

কেননা, ভাইরাসের প্রতিষেধক হলো এন্টিভাইরাস।

 

হুমমম! আপনি ঠিকই দেখেছেন। Virus যখন কোনো একটি ডিভাইসে প্রবেশ করার পর ক্রমাগত সেই ডিভাইসের ক্ষতি করার চেস্টা করে।

 

ঠিক তখনি এই ভাইরাস কে দুরে ঠেলে দেয়ার জন্য বেশ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে এই এন্টিভাইরাস।

 

অর্থ্যাৎ রোগ যদি ভাইরাস হয়। তাহলে ঔষধ হবে তার এন্টিভাইরাস। আশা করি এ বিষয়টি ক্লিয়ার ভাবে বুঝতে পেরেছেন। 

 

এন্টিভাইরাস এর কাজ কি?

VIRUS যখন কোনো একটি মোবাইল ডিভাইস এ প্রবেশ করে ৷ তখন উক্ত ডিভাইসটিতে থাকা সেটআপ করা Programme গুলো আর ব্যবহার কারীর নির্দেশ মোতাবেক কাজ করতে পারে না।

 

কেননা, ভাইরাস তখন সেটআপ করা সমস্ত সিস্টেম কে এলোমেলো করে দেয়।

 

এবং ক্রমাগত ভাবে যখন এই কাজ গুলো চলতে থাকে। তখন কোনো একটা সময়ে উক্ত ডিভাইসটি অকেজো হয়ে পড়ে।

 

কিন্তুু ডিভাইসটি অকেজো হওয়ার আগে আপনি যদি Anti Virus নামক ভার্চুয়াল মহা ওষুধ ব্যবহার করেন।

 

তাহলে কিন্তুু এই ভাইরাস আপনার ডিভাইস এর কোনো প্রকার ক্ষতি করতে পারবে না। কেননা, ভাইরাস যখন আপনার ডিভাইসের প্রোগ্রাম কে এলোমেলো করতে যাবে ৷

 

ঠিক তখনি এন্টিভাইরাস এই কাজে তাকে বাধা প্রদান করবে।

 

যেমন, আমরা যখন কোনো রোগে সংক্রমিত হওয়ার পরে ঔষুধ খাই৷ ঠিক তেমনি ভাবে ভাইরাস কে দুর করার জন্য প্রয়োজন হয় এন্টিভাইরাসের ৷

 

আর এই এন্টিভাইরাস এর মূল কাজ হলো ভাইরাসের কাজে বাধা প্রদান করা। এবং তাকে আপনার ডিভাইসে প্রবেশ করতে না দেয়া। যা একটি মানব দেহে ঔষুধের ন্যায় কাজ করে থাকে। 

 

মোবাইলে ভাইরাস দূর করার উপায়

দেখতে দেখতে আপনি আলোচনার মূল টপিকে ফিরে এসেছেন। আর্টিকেল এর শুরু থেকে আমি বেশ কিছু জরুরি বিষয় নিয়ে বিষদভাবে আলোচনা করেছি ৷

 

যেমন, ভাইরাস কি, ভাইরাসের কাজ কি, এন্টিভাইরাস কাকে বলে এবং সবশেষে এন্টি ভাইরাস এর কাজ নিয়ে আলোচনা করেছি।

 

তো ধারাবাহিক ভাবে এবার আপনি জানতে পারবেন যে, মোবাইলে ভাইরাস দূর করার উপায় গুলো কি কি।

 

যার জন্য আপনি অধির আগ্রহে বসে আছেন। তাহলে আর দেরী কেন। এবার সরাসরি সেই মূল আলোচনা তে ফিরে যাওয়া যাক।

 

দেখুন আমি পূর্বেই বলেছি যে, ভাইরাস যদি একটি রোগ হয়। তাহলে সেই রোগের এন্টিবায়োটিক হলো Antivirus.

 

কিন্তুু প্রশ্ন হলো যে, এই এন্টিভাইরাস আসলে কোনগুলো? আর এগুলো কোথায় পাওয়া যাবে? কিভাবে আপনি সেগুলো কে ব্যবহার করবেন?

 

ওয়েট ব্রো ওয়েট! মোবাইলে যেমন একটি এপস ইনস্টল করার পর আমরা সেই এপস কে ব্যবহার করতে পারি।

 

ঠিক তেমনি ভাবে মোবাইল এন্টি ভাইরাস হলো এক ধরনের Android Apps.

 

যেগুলো আপনি ব্যবহার করতে চাইলে অবশ্যই আপনাকে আগে সেই এপস গুলোকে ইনস্টল করতে হবে।

 

কিন্তুু প্রশ্ন এখানে থেকেই যাচ্ছে যে, মোবাইল এর এন্টি ভাইরাস গুলোর নাম কি কি? – হুমম! এবার আপনি সে বিষয় সম্পর্কে জানতে পারবেন।

 

কেননা, এখন আমি এমন কিছু জনপ্রিয় মোবাইলের এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার এর সাথে পরিচয় করিয়ে দিবো। যেগুলোর মাধ্যমে আপনিও আপনার মোবাইল ফোনে থাকা ভাইরাস কে দুর করতে পারবেন।

 

মোবাইল এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার এর নাম

অতিতের দিন গুলো তে মোবাইল ডিভাইসে ভাইরাস নিয়ে তেমন একটা চিন্তা করতে হতো না। কেননা, সেই সময় গুলোতে এই Virus এর সংক্রমন শুধু কম্পিউটার ডিভাইস গুলোতে লক্ষ্য করা যেত।

 

কিন্তুু সময় তো বদলে গেছে বস। তাই এখনকার দিনে আমাদের কেনা শখের মোবাইল গুলোও ভাইরাস দ্বাড়া সংক্রমিত হচ্ছে।

 

আর সেজন্য মোবাইল এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার এর নাম গুলো জেনে নেয়াটাও বেশ ফরজ কাজ হয়ে দাড়িয়েছে।

 

তো এবার আমি আপনাকে সেই এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার এর নাম এবং সেই Antivirus এর কাজ গুলো ছোট্ট আকারে আলোচনা করবো।

 

আর আপনার প্রতি বিশেষ অনুরোধ থাকবে।

 

আজকের আলোচিত এই এন্টিভাইরাস গুলো সম্পর্কে বেশ ভালো ভাবে জেনে নেয়ার। নাহলে কিন্তুু হিতে বিপরীত হতে পারে। 

 

০১| Avast Mobile Security 

বর্তমান সময়ে মোবাইলের এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার এর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় হলো Avast Mobile Security Apps. যার মাধ্যমে আপনি আপনার মোবাইল কে ভাইরাস আক্রমনের হাত থেকে রক্ষা করতে পারবেন।

 

আর Avast এতোটাই উন্নত যে আজকের দিনে শুধুমাএ মোবাইলে নয় বরং আপনি চাইলে এই এন্টিভাইরাসটি আপনার কম্পিউটার ডিভাইসেও ব্যবহার করতে পারবেন।

 

মোবাইলে ভাইরাস দূর করার উপায় হিসেবে আমি সবসময় ই Avast কে বেশি প্রাধান্য দিবো।

 

কেননা, এই এন্টিভাইরাসে আপনি বিভিন্ন ধরনের ফিচার দেখতে পারবেন। যে ফিচার গুলোর মাধ্যমে একটি ফোনকে ভাইরাস আক্রমনের হাত থেকে রক্ষা করার জন্য যথেষ্ট।

 

যেমন, এই এপসে আপনি Real Time Scan করে নিতে পারবেন। যার মাধ্যমে কোনো কারনে যদি আপনার ফোন কিংবা মেমোরি কার্ডে ভাইরাস ঢোকে ৷

 

তাহলে সাথে সাথে সেই ভাইরাস কে রিমুভ করে নিতে পারবেন। এর পাশাপাশি আপনি এখানে ব্যাটারি সেভার নামক অপশন দেখতে পারবেন৷ যার মাধ্যমে আপনি আপনার ব্যাটারি লাইফ অনেক ভালো রাখতে পারবেন।

 

০২| Kaspersky Mobile Antivirus

এটি হলো বর্তমান সময়ের ফ্রি এন্টিভাইরাস। যার জনপ্রিয়তা ক্রমেই বেড়ে চলেছে। আপনার সাধের মোবাইল ফোন কে ভাইরাস মুক্ত করার জন্য এই এন্টিভাইরাস টি অনেক বেশি কার্যকরি ভূমিকা পালন করবে।

 

আমরা সবাই জানি যে, মোবাইল ফোন গুলো সাধারনত Malware দ্বারা আক্রান্ত হয়। তো আপনি যদি Kaspersky Mobile Antivirus টি ব্যবহার করেন।

 

তাহলে কিন্তুু আপনি এই সমস্যা থেকে অনেকখানি রেহাই পেয়ে যাবেন।

 

এই মোবাইল এন্টিভাইরাস টির বিশেষ কিছু ভালো দিক আছে। যেমন, এই এপসটি যখন আপনার ফোনে ইনস্টল করা থাকবে।

 

তখন কোনো ভাইরাস আপনার ফোনে প্রবেশ করতে পারবে না। এবং যদিও কোনো কারনে আপনার মোবাইল ডিভাইসে ভাইরাস প্রবেশ করেও থাকে।

 

তাহলে এই এপসটি আপনাকে তৎক্ষনাৎ জানিয়ে দিবে ৷ এবং পরবর্তী তে আপনি Scan করে সেই ভাইরাস কে আপনি রিমুভ করে দিতে পারবেন।

 

০৩| Avira Antivirus Security 

বর্তমান বিশ্বের মধ্যে নামকরা একটি মোবাইল সিকিউরিটি এপস হলো Avira Antivirus Apps. যার মিলিয়ন মিলিয়ন ইউজার রয়েছে।

 

আর এতো বেশি জনপ্রিয়তার কারনে এটা সহজেই অনুমান করা যায় যে, উক্ত এপসটির কি পরিমান জনপ্রিয়তা রয়েছে ৷

 

আর এই এপসটির এতো বেশি জনপ্রিয়তা পাওয়ার বেশ কিছু কারন রয়েছে ৷ কেননা উক্ত এপসটি আপনার ফোনকে বিভিন্ন দিক থেকে সিকিউরিটি প্রদান করবে।

 

যেমন, এর Privacy অনেক ভালো, এখানে আপনি Anti Theft নামক ভালো একটা ফিচার দেখতে পারবেন। যার মাধ্যমে আপনার ফোনটি কোনোভাবে চুরি হয়ে গেলে।

 

সেটির লোকেশন খুজে পাওয়ার জন্য বেশ কার্যকরি ভূমিকা পালন করবে।

 

০৪| Bitdefender Antivirus Free

মোবাইল এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার হোক কিংবা কম্পিউটার এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার। এই দুটো ডিভাইস এর জন্য বেশ গুরুত্বপূর্ণ Apps হলো Bitdefender.

 

যার মাধ্যমে আপনিও আপনার শখের মোবাইল ফোনটি কে ভাইরাসের হাত থেকে মুক্ত রাখতে পারবেন।

 

অন্যান্য মোবাইল এন্টিভাইরাস এর মতো আপনি এই এপসেও নানা ধরনের ফিচার দেখতে পারবেন। যেগুলো আপনার ফোনের জন্য অনেক বেশি কার্যকরি ভূমিকা পালন করবে।

 

তাই চাইলে আপনি এই এপসটিও ব্যবহার করে দেখে নিতে পারেন।

 

মোবাইলে ভাইরাস দূর করার উপায় নিয়ে আমাদের শেষকথা 

আজকের এই আর্টিকেলে আমি যেসব মোবাইলে ভাইরাস দূর করার উপায় নিয়ে কথা বলেছি। আপনি যদি এইসব উপায় গুলো মেনে চলেন ৷

 

তাহলে আমার দীর্ঘবিশ্বাস যে আপনার ফোনটি কোনো ভাবেই ক্ষতিকর ভাইরাস দ্বাড়া আক্রান্ত হবে না।

 

তবে আপনি যদি আরও মোবাইল এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার সম্পর্কে জানতে চান। তাহলে কমেন্ট করে জানাবেন। আমি এই আর্টিকেল টিকে পুনরায় আপডেট করার চেস্টা করবো।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top