Termux কি ? কেনো এবং কিভাবে ব্যাবহার করা হয়?

আপনি যদি টারমাক্স (Termux) সম্পর্কে জানতে চান এবং কিভাবে টারমাক্স (Termux) ব্যাবহার করতে হয় সেটি সম্পর্কে জানতে চান তাহলে আমি আপনাকে নিশ্চিত করতে পারি আপনি সঠিক যায়গায় এসেছেন এবং সঠিক টিউটোরিয়াল পেয়েছেন । কেননা আমি আজকে আপনাদের সাথে শেয়ার করবো টারমাক্স (Termux) কি? কেন টারমাক্স (Termux) ব্যাবহার করা হয় এবং কিভাবে এটি ব্যাবহার করা হয়?

আজকের এই টিউটোরিয়াল এ আমরা যা শিখবো :

 

•    টারমাক্স (Termux) কি?

•    টারমাক্স (Termux) কেনো ব্যাবহার করা হয়?

•    টারমাক্স (Termux) কিভাবে ব্যাবহার করবেন?

•    টারমাক্স (Termux) ব্যাবহার করে কি কি করা যেতে পারে?

টারমাক্স (Termux) কি?

আমরা অনেকেই জানি হ্যাকিং এর অনেকটা বড়ো অংশ জুড়ে থাকে টার্মিনাল । টার্মিনাল ছাড়া হ্যাকিং করা প্রায় অসম্ভব । টারমাক্স (Termux) হলো একটি Android Application যা আজকাল অনেক বেশি ব্যাবহিত Apps গুলোর মধ্যে একটি । টারমাক্স (Termux) হলো কমান্ড লাইন ইন্টারফেস লিনাক্সের মতোই একটি টার্মিনাল (Terminal) ।

এই Apps টি ব্যাবহার করে হ্যাকিং এর অনেক কাজ করা সম্ভব । কেননা লিনাক্স ব্যাবহার করাই হয় পেনেটেরেশন টেস্ট করার জন্য । আর Termux হলো একটি Android Based লিনাক্স অপারেটিং সিস্টেম ।

মজার ব্যাপার হলো এই Apps টি ব্যাবহার করার জন্য আপনার ডিভাইস কে রুট (ROOT) করার কোন প্রয়োজন নেই। কেননা এটি রুট ছাড়াই ব্যাবহার করা যায়।

টারমাক্স (Termux) কেনো ব্যাবহার করা হয়?

ব্যাসিক্যালি, Android একটি ডেস্কটপ ক্লাসের মতো অনেক অনেক সফটওয়্যার ব্যাবহার এর জন্য সক্ষম। এবং টারমাক্স (Termux) ব্যাবহার বিভিন্ন কাজের জন্য ব্যাবহার করা হয়। টারমাক্স (Termux) একটি লিনাক্সের কার্নেল যা Android এর সাথে কানেক্টেড।  টারমাক্স ব্যাবহার করে ছোট ছোট হ্যাকিং এমনকি পেনেটেরেশন টেস্টিং ও করা হয়ে থাকে। কেননা টারমাক্স (Termux) আপনাকে লিনাক্সের টুলস বা সফটওয়্যার ইনস্টল করতে দেয়। এবং এটি অনেক জনপ্রিয় একটি লিনাক্সের কার্নেল যেখানে রুট (ROOT) সাপোর্ট ছাড়াই আপনি হ্যাকিং টেস্ট করতে পারবেন এবং প্রোগ্রামিং ও করতে পারবেন।

টারমাক্স (Termux) কিভাবে ব্যাবহার করবেন?

যেহেতু টারমাক্স (Termux) একটি লিনাক্স এর কার্নেল এবং এটিতে কমান্ড লাইন ইন্টারফেস ব্যাবহার করা হয়েছে তাই এটি ব্যাবহার করার জন্য আপনাকে কমান্ড ব্যাবহার করতে হবে। টারমাক্স এর অনেক কমান্ড রয়েছে। আপনি যদি টারমাক্স (Termux) ব্যাবহার করতে চান তাহলে আপনাকে বিভিন্ন কমান্ডের ব্যাবহার জানতে হবে।

অন্য সাধারণ Application গুলোর মতোই এটি আপনি গুগল প্লে-স্টোর থেকে ইনস্টল করতে পারবেন। এটি ব্যাবহার এর জন্য আপনাকে Termux সম্পর্কে ব্যাসিক ধারণা থাকতে হবে।

টারমাক্স (Termux) ব্যাবহার করে কি কি করা যেতে পারে?

টারমাক্স  (Termux) ব্যাবহার করে আপনি,  ছোট ছোট হ্যাকিং এট্যাক করতে পারবেন।  যেমন, বিভিন্ন ধরনের ফিশিং পেজ বানাতে পারবেন। DDOS (Distributed Denial Of Service) এ্যাটাক করতে পারবেন, এছাড়া ব্রুটফোর্স, সিসিটিভি হ্যাকিং, সোশ্যাল মিডিয়া একাউন্ট হ্যাকিং, পাসওয়ার্ড ক্র‍্যাকিং,  ওয়েবসাইট হ্যাকিং,WiFi, SQL Injection,  XSS (Cross Site Scripting), Android device হ্যাক করতে পারবেন এমনি আপনি টারমাক্স ব্যাবহার করে কম্পিউটার ও হ্যাক করতে পারবেন।  তবে এর জন্য আপনাকে অনেক কিছু জানতে হবে এবং আপনার ভাল বা মোটামুটি স্কিল থাকতে হবে।

আপনি যদি আপনার হ্যাকিং স্কিলস বাড়াতে চান তাহলে এটি দিয়ে শুরু করতে পারেন। আপনি চাইলে এই টারমাক্স ব্যাবহার করে পেনেটেরেশন টেস্টিং এ মাস্টার হতে পারবেন এবং হ্যাকিং এ অনেক দক্ষ হতে পারবেন।

টারমাক্স ব্যাবহারের জন্য কোন প্রোগ্রামিং ভাষা জানতে হবে কি না?

জি না,  টারমাক্স (Termux) বযাবহারের জন্য আপনাকে কোন প্রোগ্রামিং ভাষা জানতে হবে না। তবে আপনি যদি প্রোগ্রামিং ভাষা জেনে থাকেন বা ব্যাসিক কিছু জানেন তাহলে টারমাক্স (Termux) ব্যাবহার করা আপনার জন্য অনেকটা সহজ হয়ে যাবে।  তবে আপনাকে যে প্রোগ্রামিং শিখতেই হবে এমন কোন কথা নেই।

টারমাক্স শিখতে কত সময় লাগবে? এবং টারমাক্স ব্যাবহারের জন্য কেমন ডিভাইস প্রয়োজন?

টারমাক্স এর ব্যাবহার শিখতে কত সময় লাগবে এটা সম্পূর্ণ আপনার উপর ডিপেন্ডে করবে। আপনি সারাদিনে কতক্ষন প্র‍্যাকটিস করবেন এবং টোটাল কত সময় এর পিছনে ব্যায় করবেন তার উপর ডিপেন্ড করবে। আমার ক্ষেত্রে প্রথম অবস্থায় ২ মাসের মতো লেগেছিল।

টারমাক্স (Termux) ব্যাবহারের জন্য মোটামুটি একটু ভাল ডিভাইস হলেই হয়ে যাবে। এটি ব্যাবহারের জন্য একেবারর হাই কনফিগারেশন এর কোন ডিভাইস এর প্রোয়োজন নেই।  টারমাক্স ব্যাবহার করার জন্য ১ জিবি র‍্যাম এবং ৩ জিবি স্টোরেজ হলেই আপনি এটি ব্যাবহার করতে পারবেন।  তবে Android Version 4.0.0 এর উপরে হলেই হবে।

চলুন টারমাক্স ইনস্টলেশন এবং টারমাক্স  (Termux)  এর বেশ কিছু কমান্ড ও এর ব্যাবহার সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক।  

টারমাক্স এপ্লিকেশন টি ইনস্টলেশন করার জন্য প্রথমে আমরা গুগল প্লে স্টোরে চলে যাবো।  এবং সার্চ বারে আমরা ‘Termux’ লিখে সার্চ করবো।  এবং এখান থেকে আমরা টারমাক্স (Termux) এপ্লিকেশন টি ইনস্টল করবো।

প্রথমবার এই এপ্লিকেশন টি ওপেন করার পরে কিছুক্ষণ লোডিং নেয়ার পর ঠিক নিচে দেখোনো স্ক্রিনশট এর মতো ইন্টারফেস সো করবে। এবার আমাদের কে টারমাক্স কে স্টোরেজ পারমিশন দিতে হবে।  এটা দুইভাবে করা যাবে

১. ফোনের সেটিংস থেকে Apps এ গিয়ে Termux এ গিয়ে Apps Permission থেকে স্টোরেজ পারমিশন অন করে দেয়া।

২. কমান্ড ব্যাবহার করে।  টারমাক্স ওপেন করে নিচের কমান্ড টি কপি পেস্ট করে এন্টার করলে একটি পপ-আপ আসবে যেখানে   Allow এবং Deny থাকবে।  Allow এর উপর ক্লিক করলে  টারমাক্স (Termux) স্টোরেজ পারমিশন পেয়ে যাবে।

$  termux-setup-storage

প্রথমবার ব্যাবহারের জন্য আমাদের কে আমাদের টারমাক্স (Termux) আপডেট এবং আপগ্রেড করে নিতে হবে কেননা টারমাক্স এর যে ডিফ্লট প্যাকেজ গুলো থাকে সেগুলো নতুন ভাবে আবার আপডেট এবং আপগ্রেড করে নিতে হয় । যাতে পরবর্তিতে অন্যান্য প্যাকেজ ইনস্টল করার সময় কোন রকমের ইরোর  (Error) সো না করে । টারমাক্স এর এই প্যাকেজ গুলো আপডেট এবং আপগ্রেড করার জন্য আমাদের কে যে কমান্ড টি ব্যাবহার করতে হবে সেটি হলো ।

$ apt-get update

$ apt-get upgrade

এভাবে আপডেট এবং আপগ্রেড করার পর কিছু দরকারি প্যাকেজ ইনস্টল করতে হবে । যেমন python, python2, php, curl, nano, wget, git

python, python2 ইনস্টল করা হয় পাইথনের ফাইল রান করার জন্য । php ইনস্টল করা হয় php ফাইল রান করার জন্য । ঠিক এমনভাবে nano ব্যাবহার করা হয় .txt ফাইল ইডিট করার জন্য । git খুব দরকারি একটি প্যাকেজ এটি ইনস্টল না করা থাকলে আপনি গিটহাব (github) থেকে কোন টুলস Clone বা ডাউনলোড করতে পারবেন না ।

এই প্যাকেজ গুলো ইনস্টল করা খুবই সহজ এবং সিম্পল । প্যাকেজ গুলো ইনস্টল করার জন্য আপনাকে একটি কমান্ড ব্যাবহার করতে হবে । আপনি যে প্যাকেজ টি ইনস্টল করতে চান প্রথমে apt-get install লিখে আপনার প্যাকেজ এর নাম টা দিয়ে এন্টার করলেই হয়ে যাবে যেমন :

$ apt-get install python

এমন অসংখ্য প্যাকেজ আছে টারমাক্স এর । আগুলো যখন আপনারা ব্যাবহার করবেন তখন সবগুলোই ধীরে ধীরে আয়ত্তে চলে আসবে । আজকের পর্ব এই পর্যন্ত ।

এই পর্বে টারমাক্স (Termux) সম্পর্কে খুবই ব্যাসিক থেকে আলোচনা করেছি। আশা করি এই টিউটোরিয়াল টি আপনি পছন্দ করেছেন এবং টিউটোরিয়াল টি থেকে অনেক কিছু জানতে ও শিখতে পেরেছেন । এই পর্বের বিষয়ে যদি কোন সমস্যা কিংবা প্রশ্ন থাকে তাহলে নিচে কমেন্ট করতে পারেন অথবা  আমার সোশ্যাল মিডিয়া লিংক নিচে দেয়া থাকবে সেখানে আমার সাথে যোগাযোগ করতে পারেন ।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top