Monday , June 14 2021

৩ নারী সঙ্গী নিয়ে যেভাবে লুকিয়ে ছিলেন নাসির






অভিনেত্রী পরীমণির মা’মলার অ’ভিযুক্ত আ’সামি শিল্পপতি ও ঢাকা বোট ক্লাবের এন্টারটেইনমেন্ট অ্যান্ড কালচারাল মেম্বার নাসির উদ্দিন মাহমুদ ও অমিসহ মোট পাঁচজনকে গ্রে’ফতার করেছে পু’লিশ। এদের মধ্যে অমির গার্লফ্রেন্ড স্নিগ্ধা ও নাসিরের সঙ্গী লিপি ও সুমি রয়েছেন।

সোমবার (১৪ জুন) দুপুরে রাজধানীর উত্তরা ১ নম্বর সেক্টরের ১২ নম্বর রোডের ১৩ নম্বর বাসা থেকে পাঁচজনকে গ্রে’ফতার করে ঢাকা মেট্রোপলিটন পু’লিশের (ডিএমপি) গো’য়েন্দা (ডিবি) পু’লিশ।






গ্রে’ফতারের পর ডিএমপির গো’য়েন্দা পু’লিশের (ডিবি-উত্তর) যুগ্ম কমিশনার হারুন অর রশিদ সাংবাদিকদের বলেন, এটা পরীমনির কস্টিউম ডিজাইনার অমির বাসা। পরীমনির সংবাদ সম্মেলনের পর থেকে নাসির তার তিনজন না’রী সঙ্গী নিয়ে এই বাসায় পা’লিয়ে ছিলেন।

মা’দক রাখার অ’ভিযোগে সেই তিনজনকেও আমরা গ্রে’ফতার করেছি। অ’ভিযুক্ত নাসির উদ্দিন মাহমুদ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, নাসিরের বি’রুদ্ধে আগে মামলা হয়েছে। নানা অ’ভিযোগে তাকে উত্তরা ক্লাব থেকে ব’হিষ্কারও করা হয়েছে বলে ত’থ্য রয়েছে। তার বি’রুদ্ধে কেউ যদি অ’ভিযোগ করে, তবে আমরা সেগুলোও ত’দন্ত করবো।






তিনি বলেন, পরীমনির ঘটনা নিয়ে রোববার (১৩ জুন) রাতে সংবাদ সম্মেলন করেছিলেন তিনি। সংবাদ সম্মেলনের পরপরই আমরা অ’ভিযানের প্রস্তুতি নিয়েছিলাম। তবে রাতে মা’মলা না হওয়ার কারণে গো’য়েন্দা পু’লিশ অ্যা’কশনে যাইনি। সাভার থা’নায় দা’য়ের করা মা’মলার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার পর আমরা অ’ভিযুক্তদের গ্রে’ফতার করি।

পু’লিশের এই কর্মক’র্তা বলেন, অ’ভিযানে মা’দক উ’দ্ধারের মা’মলায় জি’জ্ঞাসাবা’দের জন্য গ্রে’ফতার আ’সামিদের মিন্টো রোডে ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। তবে পরীমনির দা’য়ের করা মা’মলায় আ’সামি নাসির ও অমিকে ঢাকার সাভার থা’না পু’লিশের কাছে হস্তান্তর করা হবে।






পরীমনি ঢাকা বোট ক্লাবের সদস্য নন, তবে তিনি সেখানে গিয়েছিলেন কেন? সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ডিবির যুগ্ম কমিশনার হারুন অর রশিদ বলেন, পরীমনি স্বনামধন্য একজন নায়িকা। তিনি ওখানে (বোট ক্লাব) যেতেই পারেন। তিনি সেখানে গেলেই যে তাকে হয়’রানি করবে সেটা ঠিক না। আস’লে কী ঘ’টেছে তা বিস্তারিত ত’দন্ত করে বলতে পারবো।